আক্রান্ত কম? নাকী নমুনা সংগ্রহে ধীরগতিঃ বরুড়ায় ৯০ দিনে সংগ্রহ ৪০০

কামরুজ্জামান জানিঃ মহামারি করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সন্দেহে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ৯০ দিনে মাত্র ৪০১ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

নমুনা সংগ্রহের ধীরগতির কারনে বরুড়ায় অনেকেই নমুনা দিতে এসে বাড়িতে ফেরত চলে গেছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে।

বৃহস্পতিবার উপজেলার লক্ষীপুর ইউনিয়ন ছোট কালিকাপুর গ্রামের মোঃ আবদুর রহিম (৬৫) নমুনা দিতে এলে কতৃপক্ষ রোগীর চাপ বলে পরদিন আসতে বলেন। ফলে তিনি নমুনা না দিয়েই বাড়িতে ফেরত চলে গেছেন। বিকেলে তার অবস্থা খারাপ হলে পরিবারের লোকজন তাকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। রাতেই সেখানের ইসোলিশনে তিনি মারা যান।

এদিকে গত তিন মাসে বরুড়া উপজেলায় ২৯জন করোনা ভাইরাস পজেটিভ পাওয়া গেছে। এটা অবশ্যই ভালো খবর যে বরুড়ায় আক্রান্তের সংখ্যা অন্য এলাকার তুলনায় কম।

এখন দেখার বিষয় গত তিন মাসে কতজনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সূত্রে জানা গেছে গত মার্চ মাসের ৮ তারিখ থেকে এ পর্যন্ত ৪০১ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। শুক্রবার জুন মাসের ৫ তারিখ পর্যন্ত ৩৫৭ জনের রির্পোট নেগেটিভ আসে। মোট আক্রান্ত হয়েছে ২৯ জন। সুস্থ্য হয়েছে ১০ জন।

দৈনিক শতকরা ৪.৪৪৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করে বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স।

শুক্রবার (৫জুন) নতুন করে আরো ৪ জনের করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে।

নতুন আক্রান্তরা হলেন, উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের স্বাস্থ্যকর্মী আবু সুফিয়ান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের সহকারী আঃ মালেকের স্ত্রী কাজল (৪২), তার মেয়ে মৌসুমী (২৪) ও ও ৬ মাসের নাতী ইয়াছিন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. শাহিদুল ইসলাম ফরহাদ।

এখন দেখার বিষয় হচ্ছে, বরুড়ায় আক্রান্ত কম, নাকি নমুনা সংগ্রহে ধীরগতি।

এবিষয়ে জানতে বরুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (টিএইচও) ডাক্তার নিশাত সুলতানার সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

Leave a Comment