করোনার ভূয়া রিপোর্ট এর কারনে বিদেশে প্রবাসীদের এবং দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে

শাহেদের গ্রেফতারের খবরটি সিঙ্গাপুরের জনপ্রিয় টিভি চ্যেনেল নিউজ এশিয়ায় প্রচারিত

আমরা প্রবাসীরা কি সত্যিই সম্মানের সাথে আছি? নাকি স্বার্থান্বেষী কিছু মহলের কুকর্মের জন্য আমরা আজ দূরে প্রবাসেও লজ্জিত হচ্ছি প্রতিনিয়ত। দেশের এমন ভূয়া সনদের খবরে কি আমরা যারা প্রবাসী আছি তাদের উপর প্রতিক্রিয়া আসবে না?? বিশ্বাসের শেষ ভরসাওটুকু যদি না থাকে তাহলে সকল দেশগুলিও তো কর্মসংস্থানের জন্য বাংলাদেশ থেকে লোক নেওয়া বন্ধ করে দেবে।

যারা দেশে গিয়েছেন ছুটিতে কোন এক সময় করোনামুক্ত সনদ নিয়ে তাদেরও তো ফিরে আসতে হবে বিদেশের মাটিতে, এই মিথ্যা সনদের খবরে তাদের সেই প্রকৃত সনদ কতটুকু মূল্যায়ন হবে তা বলতে পারেন? কিছু মানুষের হেয়ালিপনার কাছে প্রবাসীদের ভাগ্য আজ বিপদের সম্মুখিন। কিছু কিছু কুচক্রি মহল নিজের স্বার্থ হাছিলের জন্য আমাদের কে করে দিচ্ছে বিপদগামী। বিশ্ব দরবারে এমন খবর কতটুকু ক্ষতি করছে আমাদের সম্মানকে তা সবাই অবগত।

দেশের মানুষের তো ক্ষতি করছেন নিজের টাকার অংকটা বাড়ানোর জন্য কিন্তু দয়াকরে প্রবাসীদের ভাগ্য নিয়ে কেউ ছিনিমিনি খেলবেন না। এ সমস্ত কুকর্মের জন্য যদি আমাদের কর্মসংস্থানের হার টা কমে যায় তাহলে এর দায়ভার কে নিবে??
স্বাস্থ্য বিভাগের এমন দায়িত্বহীনতা কতটুকু গ্রহনযোগ্য?? এর দায় এড়াতে পারবেন আপনারা?
কুচক্রি মহল কি ধরা ছোয়ার বাহিরে? এরা কি সরকারের থেকে শক্তিশালি? তাহলে কেনো তাদের কৃতকর্মের জন্য আমাদের কে সেই ভোগান্তি পোহাতে হবে!!

কতটাকা প্রয়োজন ঐ সমস্ত কালপ্রিটদের। সাহেদ ও সাবরিনার কৃতকর্মের খবর কি সবারই অজানা ছিলো। লক্ষ লক্ষ সাহেদ ও সাবরিনা লুকিয়ে আছে পর্দার আড়ালে সে গল্প কি সবার অজানা? দেশের মানুষের ভাগ্যের সাথে কেন প্রতিনিয়ত তারা ছিনিমিনি খেলছে। স্বাস্থ্য বিভাগ আজ মুখ থুবড়ে পড়েছে সাহেদের কাছে তাহলে সাহেদ কি স্বাস্থ্য বিভাগের থেকে শক্তিশালী!! স্বাস্থ্য বিভাগের এই দায়িত্বহীনতার দায়ভার স্বাস্থ্য বিভাগের সংশ্লিষ্ট সকলকে নিতে হবে। স্বাস্থ্য মন্ত্রানালয়ের এতগুলি দায়িত্বপ্রাপ্ত লোক থাকতে এরা এগুলা করে কিভাবে।।। স্বাস্থ্য বিভাগ কি কখনও কোন হসপিটালে অডিট করেনা নাকি পেট ভর্তি টাকা খেয়ে বাড়িতে বসেই পাশ দিয়ে দেই তা আমার বোধগম্য নয়।

দূর্নীতি দমন কমিশনের কাজগুলি কি সাহেদ, সাবরিনা কে খুজে বের করার কাজের মধ্যে পড়ে না!! গোয়েন্দা সংস্থা কি এদিকে কোন লক্ষ রাখে না!! লক্ষ লক্ষ প্রতারক চক্র এখন আমাদের সমাজে বিদ্যমান। তাদের কে খুজে বের করুন তা না হলে দেশের অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যাবে বৈদেশিক দেশগুলির সাথে সম্পর্ক হারানোর মাধ্যমে।

নামিদামি লোকেরা তাদের বাড়িগাড়ি তৈরি করে উন্নত সব দেশে। তাদের কাছে দেশের কোন দাম নেই। তারা দেশটাকে বিক্রি করে দিয়ে বিদেশে বসে সুশিল সমাজ সাজে। ব্যবসায়ী, রাজনীতিবিদ, অভিনয় শিল্পি ছাড়াও অনেকে বিদেশে পাড়ি জমায় উন্নত জিবন যাপনের আশায়। কিন্তু আাদের মত প্রবাসীরাই কষ্টার্জিত টাকা দেশে পাঠায়। তাদের আপন ঠিকানা দেশ – দেশের মাটি। প্রবাসীদের মত দেশ প্রেমিক আছে কেউ?

আসুন আমরা সবাই এক হয়ে সমস্ত প্রতারক চক্রকে চিহ্নিত করি। তাদের কে খুজে বের করি। সাংবাদিক ভাইয়েদের কাছে অনুরোধ আপনার আরও সোচ্চার হউন। আপনারা চাইলে এমন প্রতারকদের কে জনগনের সামনে আনা খুব একটা কঠিন না। আমাদের দেশের ভাবমুর্তি অক্ষুন্ন রাখার দায়িত্ব আমার, আপনার আমাদের সবার। বিদেশের মাটিতে আর লজ্জিত হতে মন চাই না। যতদিন থাকি আমাদের কে সম্মানের সাথে মাথা উঁচু করে থাকতে দিন।

জেএম জসিম
সিঙ্গাপুর প্রবাসী

Leave a Comment