করোনা সার্ভে : স্বাস্থ্য আধিকারিকের বিরুদ্ধে দ্বায়িত্বজ্ঞানহীনতার অভিযোগ

প্রসেনজিৎ দাস, আগরতলাঃ সঠিক নির্দেশ না থাকায় আশা কর্মিরা ক্ষুব্ধ। ত্রিপুরার তেলিয়ামুড়া মহকুমা হাসপাতালের আধিকারিকের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ। সোমবার থেকে ত্রিপুরার প্রত্যেকটা মহকুমা এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে স্বাস্থ্য বিষয়ক সার্ভে হওয়ার দিন ঠিক করা হয়। সেই মোতাবেক তেলিয়ামুড়া মহকুমাধীন আশা কর্মিরা ও মহকুমা স্বাস্থ্য আধিকারিক এর নির্দেশে তেলিয়ামুড়া স্থিত অশ্বিনী কুমার স্মৃতি কমিউনিটি হলে উপস্থিত হন সকাল নয়টা ত্রিশ মিনিটে। কিন্তু সেখানে বিগত দিনে পরিযায়ী শ্রমিকদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়ে ছিল, সেটা পরিস্কার ও সেনিটাইজ করা হয়নি। এতে আশা কর্মিরা স্বাস্থ্য আধিকারিক এর নির্দেশে ক্ষোভ প্রকাশ করে। পরবর্তি সময়ে পুর পরিষদে যাওয়ার কথা বলা হয়। সেখানে তারা এলে তাদের সাথে বাজে ব্যবহার ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন এক পুর আধিকারিক বলে অভিযোগ আশা কর্মিদের । এতে আশা কর্মিরা আরও ক্ষুব্ধ হয়ে পরে। এরই মাঝে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় ছুটাছুটিতে এবং পুরাধিকারিকের সংগে বাকবিতন্ডার সময় শীলা পাল নামে এক আশা কর্মি অসুস্থ হয়ে পরেন। বর্তমানে তেলিয়ামুড়া মহকুমা হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছে বলে জানা যায়। তাদের বক্তব্য অনুযায়ী তেলিয়ামুড়ায় ১৪৭ জন আশাকর্মিদের মধ্যে ১২ জনের নাম লিস্টে নেই। এছাড়াও এক ওয়ার্ড থেকে অন্য ওয়ার্ডে পাঠানো হচ্ছে সার্ভের কাজে। মহকুমা স্বাস্থ্য আধিকারিকের দ্বায়িত্বজ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। সরকারের সিদ্ধান্ত কে বাস্তব রুপ দিতে স্বাস্থ্য আধিকারিকের দ্বায়িত্বজ্ঞান হিনতার জন্য ত্রুটি পুর্ন রয়ে গেল সার্ভের কাজ। এদিকে তেলিয়ামুড়া পুর পরিষদের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান খবর পেয়ে ছুটে আশেন পুর পরিষদে। তারা বিষয়টির খবরাখবর নেন। মহকুমা স্বাস্থ্য আধিকারিক ও পুর পরিষদের জনৈক আধিকারিকের এহেন আচরণের নিন্দা জানান এবং স্বাস্থ্য আধিকারিকের এহেন দ্বিতীয়জ্ঞান হীন কাজের জন্য ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

Leave a Comment