কুমিল্লা বুড়িচংয়ে স্কুল ছাত্রকে অপহরণ করে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ

আব্দুল্লাহ আল মামুন ভূঁইয়া, বুড়িচং প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার হোসেন পুর গ্রামে পূর্ব বিরোধের জের ধরে নবম শ্রেণির এক স্কুল পড়ুয়া ছাত্রকে অপহরণে জবাই করে হত্যার করার চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এঘটনায় সোমবার রাতে সাত জনকে নামীয এবং ৩জনকে অজ্ঞাত আসামী করে বুড়িচং থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে।
অভিযোগের বিবরণে জানা যায় জেলার বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি ইউনিয়নের হোসেন পুর গ্রামের সাবেক মেম্বার মোঃ আব্দুল হামিদ এর ছেলে রাশেদুল হাসান মিশন(১৪) গত শনিবার রাত ৭.৫৫ মিনিটে বন্ধুদের সঙ্গে স্হানীয় ডাকলা পাড়া মসজিদে তারাবির নামাজ পড়তে যায়। এসময় মসজিদের সামনে থেকে ৮.৫ মিনিটে একই এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে মোঃ বিল্লাল হোসেন(২৮), মোঃ মামুন প্রকাশ বাবন মিয়ার ছেলে মোঃ আল আমিন(১৮) রাশেদুল হাসান মিশন কে হুমকি ধুমকি দিয়েতার মুখে গামছা বেঁধে পাজা কোলে করে অপহরণ করে নিয়ে যায়। রাশেদুল হাসান মিশন স্হানীয় সৈয়দ পুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র। অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার সময় রাশেদুলের বন্ধুরা তার বড় ভাই তারেকুল হাসানকে বিষয়টি ফোন করে জানালে তারেকুল হাসান তাদের লোক জন নিয়ে বিল্লাল হোসেনের বাড়িতে গিয়ে রাশেদুলে নাম ধরে ডাক চিৎকার করে। তখন বিল্লাল হোসেনের বাড়ির পুকুরের পূর্ব পাশের ঝোপ জঙ্গল থেকে রাশেদুলের সুর চিৎকার ভেসে আসলে তারেকুল ও তার লোকজন এগিয়ে গেলে মৃত ছমেদ আলীর ছেলে আব্দুল আজিজের হুকিমে ৮/১০ জন সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। স্হানীয় লোকজন এগিয়ে আসে এবং খবর পেয়ে বুড়িচং থানার দেবপুর ফাঁড়ি পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে।
অভিযোগ কারী আব্দুল হামিদ মেম্বার বলেন সন্ত্রাসীরা আমার ছেলে রাশেদুল হাসান মিশন কে অপহরণ করে নিয়ে মুখে গামছা বেঁধে আব্দুল আজিজের ছেলে ইকবাল হোসেন (৩৫) তার বুকের উপর বসে ছুরি দিয়ে গলায় কেটে হত্যার চেষ্টা করে।এসময় আমার অপর ছেলে তারেকুল হাসান লোকজন নিয়ে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।আব্দুল হামিদ মেম্বার আরো জানায় তিনি হোসেন পুর মৌজায় ৫৮ নং খতিয়ান হাল ১১০ দাগে ১৩ শতক জমি তিনি বিগত ১১বছর পূর্ব ক্রয় করে ঘর নির্মান করে ভাড়া দিয়ে ভোগ দখল করে আসছেন। কিন্তু আব্দুল আজিজ এ জমিটি জোর জবর দখল করার চেষ্টা করছে।এ নিয়ে গত কয়েক মাস ধরে উভয় পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে।এ বিরোধের জের ধরে স্কুল পড়ুয়া নবম শ্রেণির ছাত্র রাশেদুল হাসান মিশন অপহরণ করে হত্যার চেষ্টা বলে দাবী করছেন আব্দুল হামিদ মেম্বার।তিনি আরো জানান এ জমি নিয়ে কোর্টে আমাদের মামলা চলছে।
এঘটনায় সোমবার রাতে আব্দুল হামিদ মেম্বার বাদি হয়ে ৭ জনকে নামীয এবং ৩ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে বুড়িচং থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। আসামীরা হল একই এলাকার কালাকচুয়া গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে মোঃ ইকবাল হোসেন, নুরুল ইসলামের ছেলে বিল্লাল হোসেন, মোঃ মামুন প্রকাশ বাবনের ছেলে মোঃ আল আমিন, মোঃ ইকবাল হোসেনের ছেলে মোঃ রিয়াদ প্রকাশ হৃদয়, মৃত্যু ছমেদ আলীর ছেলে আব্দুল আজিজ, হোসেন পুর গ্রামের সুন্দর আলীর ছেলে মোঃ আক্তার হোসেন, রমিজ মিয়ার ছেলে মোঃ ফরহাদ হোসেন।
এ ব্যাপারে দেবপুর ফাঁড়ি পুলিশের এস আই মোঃ জহিরুল ইসলাম বলেন খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। আমরা পৌছার পূর্বে রাশেদুল হাসান কে তার লোকজনেরা উদ্ধার করে। আমরা যত দূর জেনেছি উভয় পক্ষের মধ্যে জমি নিয়ে কোর্টে মামলা রয়েছে এবং বিরোধ রয়েছে।
এ ব্যাপারে বুড়িচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোজাম্মেল হক পিপিএম বলেন, এঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত চলছে। স্কুল পড়ুয়া ছাত্রকে অপহরণের বিষয়টি এবং হত্যার চেষ্টা ঘটনাটি ও তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্হা নেয়া হবে।

Leave a Comment