চাই কাশফুলে সাজানো নতুন আলোর ভোর

 

ফারজানা পরী

মন জুড়ে মন খারাপের বায়না,
তাই আর মন ছোঁয়া কবিতা লেখা হয়না,
কতদিন চোখে কাজল পরিনি,
আয়নার সামনে বসে নিজেকে কাজলরানী সাজাইনি,
আমি কোনদিন মেকাপ করিনা,কাজল আমার ভীষণ প্রিয়,
তাই সাজগোছ বলতে কেবল চোখে কাজল টাই পরি,
মনে হয় পৃথিবীর সব কাজল তৈরি হইছে আমার চোখ সাজানোর জন্য,
তাই কাজল না পরলে মনে শান্তি পাইনা,
এক মাস আগে,পণ করেছিলাম মনে মনে,
পৃথিবী যেদিন করোনা মুক্ত হবে,
সেদিন থেকে চোখে কাজল পরবো,
তাই যাচ্ছে সময় যা ইচ্ছে তাই।
তবে আমি ঠিক এমন এমনই, একটি সাধারন মেয়ে,
এখন সময়টা যাচ্ছে রোজা,প্রার্থনা,ঘুম খাওয়া,হাত ধোওয়া, কবিতা আর বইয়ে।

অনেক দিন ছুঁয়ে দেখিনি আমার দুঃখ নদীর জল,
আচ্ছা আজকাল নদীরও কী মন খারাপ থাকে?
নদীর পার ঘেষে এখোনো কী কাশফুল ফোটে?
অনেক দিন সবুজ ছুঁয়ে দেখিনি,বুক ভরে নিঃশ্বাস নেইনি,
ঘাসফুলেদের সাথে খুনসুটি করিনি,
আচ্ছা ঘাসফুলেরা কী এখনো আমার জন্য অপেক্ষা করে?
নাকি ঘাসফুলেদেরও আমার মত মন খারাপ?
কতদিন জানালা খুলিনি, মন ভরে আকাশ দেখিনি,
বন্দী ঘরে একেলা কেবল ছটফট করছি,
শূন্য বুকটা খাঁখাঁ করছে কী যেন হারাবার ব্যথায়,
কিছু কিছু দুঃখ একান্ত নিজের ব্যক্তিগত কেউ জানতে পারেনা,
চিরকাল বয়ে বেড়াতে হয় আপন মনে,বলা হয়ে ওঠে না হয়তো কোনদিন,
আজকাল ঘুমের ঘোরে তলিয়ে থাকি অতল গহীনে,
স্বপ্নে ডুবে আলোর পৃথিবীতে হাঁটি,
চোখ খুলে দেখি আঁধারে পথ হাঁটছি,পৃথিবী থমকে আছে,
না জানি আর কত আঁধার পেরিয়ে ছুঁতে পারবো,
সাদা কাশফুলে সাজানো একটি নতুন আলোর ভোর।

Leave a Comment