তাহিরপুরে নৌঘাটের টোল আদায়ের নামে চাঁদাবাজি,ছাত্রলীগের বাঁধা

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:
সুনামগঞ্জ তাহিরপুর উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত শ্রীপুর বাজার নৌকাঘাট ও ডাম্পের বাজারের নৌকাঘাটের টোল আদায়ের নামে চাঁদাবাজিতে ছাত্রলীগের বাঁধা।

উপজেলা প্রশাসনের তথ্যসুত্রে জানাযায় সুনামগঞ্জ তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের অষ্টম ও নমব মাসিক সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক,ও উপজেলার নৌকাঘাট ও ফেরিঘাট ইজারা সংক্রান্ত কমিটির সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক এবং উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) ৩১,৪৬,৯০৯২,০০০,০৭,০০৮,১৪,১৯৭ নং স্মারক মূলে তাহিরপুর উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের বালিয়াঘাট গ্রামের আবুল হোসেন খাঁন এর ছেলে আবুল কালাম খাঁ পারুল,কে উপজেলা পরিষদের ব্যবস্থাপনাধীন তাহিরপুর উপজেলার শ্রীপুর বাজার নৌকাঘাট ও ডাম্পের বাজার নৌকাঘাট, মামলা জড়িত অংশ ব্যতিত সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী ১৪২৭সনের ইজারা না হওয়া পর্যন্ত সরকারের দখল নিয়ন্ত্রণ ও রাজস্ব বৃদ্ধির স্বার্থে ১৪২৭বাংলা খাস কলেকশনের অনুমোদন দেওয়া হয়।

কিন্তু স্থানীয়দের তথ্যমতে জানাযায় আবুল কালাম খাঁ পারুল উপজেলা শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত, শ্রীপুর বাজার নৌকাঘাট ও ডাম্পের বাজার নৌকাঘাট খাশকালেকশনের নামে দলীয় প্রভাব কাটিয়ে,সরকার কর্তৃক নিয়মনীতিকে তোয়াক্কা না করে, তার নিজস্ব লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে,বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে উপজেলার পাটলাই নদী সহ,তেরঘর গ্রাম সংলগ্ন সংসার বিল,সোনাপুর ও কামনাপড়া এলাকায় রশিদ বিহীন কয়লা ও চুনাপাথর পরিবহন নৌকা হতে টোল আদায়ের নামে চাঁদাবাজি করে যাচ্ছে।

এতে সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ নেতাকর্মী সহ স্থানীয় কয়লা ও চুনাপাথর পরিবহনকারী নৌকা শ্রমিকরা রশিদ বিহীন সরকার কর্তৃক নিয়মনীতি না মেনে চাঁদাবাজিতে বাঁধা দিলে এবং সরকারি নিয়মনীতি মেনে টোল আদায়ের কথা বল্লে ছাত্রলীগ নেতা সহ নৌ পরিবহন শ্রমিকদের বিভিন্ন ভাবে হুমকিধামকি করলে,তারা ভয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে ।

এ বিষয়ে সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আবুল হাসনাত রিফাত বলেন,বর্তমান অদৃশ্য শক্তি করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবে সবাই যখন আতঙ্কিত হয়ে ঘরবন্দী হয়ে থাকলেও।আমাদের এলাকার কিছু খেটে-খাওয়া নিন্ম আয়ের শ্রমজীবী অসহায় মানুষ জীবিকার তাগিদে পারছেনা ঘরবন্দী হয়ে থাকতে। কয়লা ও চুনাপাথর নৌকায় পরিবহন করে দেশের বিভিন্ন স্থানে পরিবহন করে যাচ্ছে । এতে করে তারা সরকার নিয়মনীতি মোতাবেক টোল প্রদান করতে চাইলেও আবুল কালাম খাঁ পারুল, তার নিজস্ব লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে,বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে রশিদ বিহীন, জোরপূর্বক চাঁদাবাজি করে যাচ্ছে। যেন দেখার কেউ নেই।

ছাত্রলীগ নেতা আর বলেন আমরা জানি উনি উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত শ্রীপুর বাজার নৌকাঘাট ও ডাম্পের বাজার নৌকাঘাট সরকার নিয়মনীতি মধ্যে কালেকশন এর মাধ্যমে টোল আদায়ের অনুমোদন পায়, কিন্তু উনি শ্রীপুর বাজার ও ডাম্পের বাজার নৌকাঘাট খাস কলেকশন এর নামে শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত তেরঘর, সোনাপুর ও কামনা পাড়া সহ পাটলাই নদীতে অবৈধভাবে রশিদ বিহীন চাঁদাবাজির রাজত্ব কায়েম করে যাচ্ছেন। এ ব্যাপারে উনি সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সদয় দৃষ্টি কামনা করেন।

এ বিষয়ে উপজেলার শ্রীপুর বাজার ও ডাম্পের বাজার নৌকাঘাট খাস কালেকশন প্রাপ্ত আবুল কালাম খাঁ পারুল কে একাধিক বার ফোন করলেও ফোন রিসিভ না করায় যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে ঘটনাস্থলে আসা টেকেরঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ক্যাম্প ইনচার্জ এ এস আই আবু মুসার কাছে জানতে চাইলে উনি বলেন আমি স্যার এ-র নির্দেশ ক্রমে এসেছিলাম এ বিষয়ে আমি কিছু জানি না, আপনারা স্যার এর কাছে জানতে পারেন।

এ বিষয়ে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সরকারি মোবাইল নাম্বারে একাধিকবার চেষ্টা করলেও উনি ফোন রিসিভ না করায় যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

Leave a Comment