ত্রিপুরা গ্রীন জোনে করোনা আক্রান্ত দুই বিএসএফ জওয়ান, চলছে চিকিৎসা

প্রসেনজিৎ দাস, আগরতলা, ত্রিপুরায় গ্রীন জোন এলাকা থেকে দুই করোনা আক্রান্তের হদিস মিলল শনিবার। ত্রিপুরায় ফেরার ৫২ দিনের মাথায় করোনা আক্রান্ত এক বিএসএফ জওয়ানের সন্ধান মিলেছে। তাঁর থেকে আরও এক বিএসএফ জওয়ান সংক্রমিত হয়েছেন। ত্রিপুরায় করোনা আক্রান্ত ২ বিএসএফ জওয়ানের মধ্যে একজন গত ১১ মার্চ অসম থেকে ত্রিপুরায় ফিরেছেন। গত ২২ এপ্রিল তিনি কর্মক্ষেত্রে যোগ দেন। ২৫ এপ্রিল তিনি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। তাঁকে দেখাশুনার জন্য এক জওয়ানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। দুজনই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁদের সংস্পর্শে ছিলেন এমন এখন পর্যন্ত ৬৮ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাঁদের নমুনা সংগ্রহের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

এ-বিষয়ে শনিবার সচিবালয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী রতন লাল নাথ, ত্রিপুরার ধলাই জেলা সদর আমবাসায় জহরনগরস্থিত বিএসএফ ১৩৮ ব্যাটালিয়নের এক হেড কনস্টেবল এবং একজন কনস্টেবল করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানান। তিনি বলেন, বিএসএফের ওই হেড কনস্টেবল অসমের শিবসাগর জেলার বাসিন্দা। গত ১১ মার্চ তিনি ত্রিপুরায় ফিরেছেন। এর পর যথারীতি কাজে যোগ দিয়েছেন। শিক্ষামন্ত্রীর জানান, গত ২২ এপ্রিল ওই জওয়ান ধলাই জেলার গন্ডাছড়া মহকুমায় করিনা বিওপি-তে যোগ দেন। ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত তিনি সেখানেই ছিলেন। কিন্তু পেটে ব্যথা হওয়ায় ওইদিন তাঁকে গন্ডাছড়া মহকুমা হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল। সেখান থেকে তাঁকে ধলাই জেলা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন চিকিৎসকরা। তিনি বলেন, ১ মে পর্যন্ত ওই জওয়ান ধলাই জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। ওইদিন রাতে তাকে জিবি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় এবং জি বি হাসপাতালে ফ্লু ক্লিনিকের তত্ত্বাবধানে তাঁর চিকিৎসা শুরু হয়।
ধলাই জেলা হাসপাতালে ওই জওয়ানকে দেখাশুনার জন্য এক কনস্টেবলকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। তাঁকেও জিবি হাসপাতালে ফ্লু ক্লিনিকে পরীক্ষা করে ভরতি করা হয়েছিল। আজ সকালে তাদের লালারস পরীক্ষা করে দুজনেরই রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। তিনি বলেন, বিএসএফের হেড কনস্টেবল প্রথমে করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। তার থেকেই ওই কনস্টেবল সংক্রমিত হয়েছেন। তবে, ওই হেড কনস্টেবল কীভাবে সংক্রমিত হয়েছেন, তা এখনও খুঁজে বের করা সম্ভব হয়নি। তিনি জানান, করোনা আক্রান্ত বিএসএফ জওয়ানের সংস্পর্শে ছিলেন এমন এখন পর্যন্ত ৬৮ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাঁদের নমুনা সংগ্রহের কাজ শুরু হয়েছে।

Leave a Comment