দক্ষিণ সুরমার ওসি প্রত্যাহার সহ শ্রমিকদের ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম

সমাবেশ

সিলেট ব্যুরোঃ শ্রমিকে ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন রিপন হত্যার ঘটনায় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের পক্ষ থেকে কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করা হয়েছে। শনিবার দক্ষিণ সুরমার ফিরোজপুর লাউয়াই সংগঠনের কার্যালয়ে এক সমাবেশ থেকে এই ঘোষণা দেওয়া হয়। সমাবেশ থেকে দক্ষিণ সুরমা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খায়রুল ফজল ও সেকেন্ড অফিসার রিপনকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্রত্যাহারের দাবি সহ অনতিবিলম্বে হত্যাকান্ডের মূল আসামীকে গ্রেফতার করার আহবান জানানো হয়। বক্তারা হুশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, অন্যতায় শ্রমিকদের ক্ষোভের অনল থেকে কেউই রেহাই পাবেনা।

সভায় শ্রমিকদের দাবির প্রতি একাত্বতা পোষন করে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, ডিসি সোহেল আহমদ, ট্রাফিকের ডিসি ফয়সল মাহমুদ, কাউন্সিলর লিপন বক্স, শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শাহজাহানসহ মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ।

এর আগে ইকবাল হোসেন রিপন হত্যার প্রতিবাদে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে অবরোধ আহবান করেন আন্দোলনরত ট্যাংকলরি শ্রমিকরা। ফলে সারাদেশের সাথে শনিবার মধ্যরাত থেকে সড়ক যোগযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে সিলেট।
শনিবার সকাল থেকে দক্ষিণ সুরমার চন্ডিপুল,হুমায়ুন রশিদ চত্বরসহ সিলেটের প্রবেশ মুখগুলোতে সড়ক অবরোধ করে যানবাহন চলাচলে বাধা সৃষ্টি করে । এসময় দুর্ভোগে পড়েন সাধারণ মানুষ। বিশেষ করে অফিসগামী লোকজন।

জানা যায়, শুক্রবার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সিলেট জেলা ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়নের সেক্রেটারি ইকবাল হোসেন রিপনকে (৪০) কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এছাড়াও দুর্বৃত্তের হামলায় বাবলা নামে এক যুবলীগ নেতা আহত হন। শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার বাবনা পয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে। ইকবাল হোসেন রিপন দক্ষিণ সুরমার খোজারখলা এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে।

সিলেট মহানগর পুলিশের দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) খায়রুল ফজল বলেন, অতর্কিতভাবে হামলা চালিয়ে সিলেট জেলা ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়নের সেক্রেটারি ইকবাল হোসেন রিপনকে গুরুতর আহত করে দুর্বৃত্তরা। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

Leave a Comment