দশ বছর পর মঞ্চ নাটকে ফিরছি

মঞ্চ, টিভি নাটক ও চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেতা আনিসুর রহমান মিলন। পূজা উপলক্ষে নির্মিত একাধিক নাটকে অভিনয় করেছেন। এ ছাড়া ধারাবাহিক নাটক ও সিনেমার কাজেও ব্যস্ত এ অভিনেতা। অভিনয় এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে আজকের ‘হ্যালো…’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি

* এখন কী নিয়ে ব্যস্ত?
** গত কয়েকদিন দুর্গাপূজা উপলক্ষে নির্মিত নাটকে অভিনয় করেছি। এবারের পূজায় আমার অভিনীত তিনটি নাটক প্রচার হবে টিভিতে। এগুলো পরিচালনা করেছেন চন্দন চৌধুরী ও জিয়াউর রহমান।

* ধারাবাহিক নাটকের ব্যস্ততা কেমন?

** এ মুহূর্তে আজাদ কালামের পরিচালনায় ‘টুইন ভিলেজ’ নামে একটি ধারাবাহিকের শুটিং করছি গাজীপুরের পূবাইলে। এ নাটকে আমার চরিত্রটি খুবই সুন্দর। এ ছাড়া সঞ্জিত সরকারের পরিচালনায় ‘চিটিং মাস্টার’ এবং কায়সার আহমেদের ‘বকুলপুর’ ধারাবাহিকেও অভিনয় করছি। আরও কয়েকদিন এ তিনটি নাটকের শুটিং নিয়েই ব্যস্ত সময় কাটবে।

* মঞ্চ নাটকে ফিরছেন এমন কথা শোনা যাচ্ছে…

** একটি রেপাটরি প্রযোজনার কাজ দিয়ে মঞ্চে কাজ করার প্রস্তুতি নিচ্ছি। নাটকটির গল্প লিখেছেন মাসুম রেজা এবং নির্দেশনা দেবেন নাসিরউদ্দিন ইউসুফ। তিনজন শিল্পী এতে অভিনয় করবেন। তবে সিডিউল সংক্রান্ত জটিলতায় এখনও কিছুই চূড়ান্ত হয়নি। যদি সবকিছু সমন্বয় করতে পারি তাহলে বলা যায়, দশ বছর পর মঞ্চ নাটকে ফিরছি। ২০০৮ সালে দেশ নাটকের হয়ে ‘বিরসা কাব্য’ নাটকে সর্বশেষ অভিনয় করেছিলাম।

* সিনেমার ব্যস্ততা কেমন এখন?

** নাটকের পাশাপাশি সারা বছরই সিনেমার কাজেও ব্যস্ত থাকি। কিছুদিন আগে নোয়াখালী থেকে নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুলের পরিচালনায় ‘গাঙচিল’ নামের একটি সিনেমার শুটিং করে ফিরেছি। আগামী মাসেই এ সিনেমার কাজ শেষ হবে। এ ছাড়া অনিরুদ্ধ রাসেল ও ওয়াজেদ আলী সুমনের দুটি সিনেমায়ও চুক্তিবদ্ধ হয়েছি। এগুলোর কাজ শুরু হবে শিগগিরই।

* সিনেমা পরিচালনার কথাও বলেছিলেন কিছুদিন আগে। এর অগ্রগতি কী?

** গল্প চূড়ান্ত করেছি এরই মধ্যে। অভিনয়শিল্পীর প্রাথমিক তালিকাও করা হয়েছে। অর্থায়নের বিষয়টি চূড়ান্ত হয়নি। এটি সম্পন্ন হলেই সিনেমা পরিচালনার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেব। আশা করছি চলতি বছরের মধ্যেই সবকিছু চূড়ান্ত হবে।

* চলতি মাসেই চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন হচ্ছে। ভবিষ্যৎ কমিটির কাছে প্রত্যাশা কী?
** আগের কমিটির ব্যর্থতাগুলো যেন আর না থাকে। শিল্পীদের কাজের পরিধি বৃদ্ধি করতে হবে। এ ছাড়া শিল্পীদের পেনশন ব্যবস্থা প্রবর্তনের জন্য ভবিষ্যৎ কমিটি যেন আন্তরিক হয়। সর্বোপরি চলচ্চিত্র শিল্পের উন্নয়নে আগের চেয়ে যেন বেশি কর্মকাণ্ড পরিচালিত করতে পারে, এ কামনা করি।

Leave a Comment