পিরোজপুরে ভুয়া চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডাক্তার গ্রেফতার

পিরোজপুরে প্রতিনিধিঃ
পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় পলাশ কান্তি সাহা (৪০) নামে এক ভুয়া চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডাক্তারকে ছয় মাসের কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রামমান আদালত।
মঙ্গলবার (২১ জুলাই) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ঊর্মি ভৌমিকের ভ্রাম্যমান আদালত এ রায় প্রদান করেন। ভুয়া চিকিৎসক পলাশ পিরোজপুর সদর উপজেলার ডুমরিতলা এলাকার মৃত হরিদাস সাহার পুত্র।
স্থনীয় সূত্রে জানা গেছে, পলাশ মঠবাড়িয়ার নিউমার্কেট এলাকার হোটেল নূর আলম আবাসিক বোর্ডিং এর একটি রুমে প্রতি মঙ্গলবার পিরোজপুর জেনারেল ও চক্ষু হাসপাতালের প্যাড ব্যবহার করে নিজেকে চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডাক্তার পরিচয় দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসার নামে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছিলেন পলাশ।
মঙ্গলবার (২১ জুলাই) সকালে দক্ষিণ মিঠাখালী গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিক সোহেল নামের ব্যবসায়ীর স্ত্রী তানজিলা আক্তার (২২) চোখের চিকিৎসার জন্য ওই ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায়। এসময় ওই রোগী তার চিকিৎসা ও ঔষধপত্র দেখে সন্দেহ হলে স্থানীয় সংবাদকর্মীদের অবহিত করেন। পরে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঊর্মি ভৌমিকের নেতৃত্বে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই ভুয়া চিকিৎসককে আটক করে। এসময় পুলিশ পিরোজপুর চক্ষু হাসপাতালের প্যাড ও চোখের পাওয়ার কাউন্ট করার লেমিনেটিং করা দুই পাতা বিশিষ্ট বই, একটি পুরাতন চায়না টর্চলাইট, একটি মিনি চোখের পাওয়ার পরীক্ষার ফ্রেমসহ বিভিন্ন সরঞ্জামাদি জব্দ করেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ঊর্মি ভৌমিক জানান, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ এর ৫৩ ধারার অপরাধ করায় ওই ভুয়া ডাক্তার পরিচয়দানকারীর বিরুদ্ধে এ দণ্ডাদেশ দেয়া হয়। তিনি আরও বলেন, এধরণের ভুয়া ডাক্তার দ্বারা অপচিকিৎসা দিয়ে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণাকারীদের বিরুদ্ধে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Leave a Comment