বরুড়ায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পেতে গ্রহকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন ডিজিএম

বরুড়া প্রতিনিধিঃ কুমিল্লার বরুড়ায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পেতে গ্রহকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন ডিজিএম জালাল উদ্দীন।
তিনি গ্রাহকদের সহযোগিতা ছেয়ে তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে একটি স্টেটস দিয়েছেন। মুক্তির লড়াই’র পাঠকদের জন্য তা হুবহু তুলে ধরা হলো।

ঃদৃষ্টি আকর্ষণঃ
বিদ্যুৎ বিভাগে চাকুরীর সুবাদে যেকোনো ধরনের নেতিবাচক আবহাওয়ার পূর্বাভাষ কিংবা আকাশে ছোট বড় মেঘের ডাক বা গর্জন যেটাই কানে আসুক না কেনো, মনের মধ্যে তোলপাড় শুরু হয়ে যায়। বড় কোন সামাজিক /ধর্মীয় উৎসব কিংবা জাতীয় কোন পোগ্রাম থাকলে তো কথাই নাই। টেনশন আরও বহুগুনে বেড়ে যায়।
গ্রাহকগণকে ভাল মানের নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ দিতে পারলেই আমাদের আনন্দ। তাইতো সবকিছু বাদ দিয়ে, পরিবার পরিজনকে দূরে সরিয়ে, বৈশ্বিক মহামারী করোনাকে উপেক্ষা করে আমাদের কর্মী বাহিনী আপনাদের সেবায় কাজ করে যাচ্ছে। করোনা মহামারীতে কিংবা পবিত্র ঈদে আমাদের কোনো ছুটি /অবকাশ নেই, আমাদের ১০০% লোক কর্মস্থলে উপস্থিত।
দয়াকরে এদের কেউ অসম্মান করবেননা। আপনি শুধু ভাবছেন আপনার বাসায় কেন বিদ্যুৎ নাই। কিন্তু আমরা কাজ করছি আপনার মত লক্ষাধিক গ্রাহকের জন্য, পরিচালনা করছি 1500km এর উপরে বৈদ্যুতিক লাইন। যা গাছ-পালা, বন-জঙ্গলের মধ্য দিয়ে বরুড়ার প্রতিটি আনাচে – কানাচে ছড়িয়ে আছে। কালবৈশাখী /ঝড়ের মৌসুমে /সময়ে প্রায়শই লাইনের উপর গাছ উপড়ে পড়ে, বহুদূর থেকে বাশ চলে আসে। ১০০% ক্লিয়ার করা ছাড়া কিছুতেই লাইন চালু করা যায় না।
তাই যেকোন পরিস্থিতিতে আমাদের সেবা সমূহকে দ্রুত বাস্তবায়ন করার জন্য আপনাদের সহযোগিতা একান্তভাবে কাম্য।
১) বিদ্যুৎ বিভ্রাট হলে ধৈর্য্য সহকারে অপেক্ষা করুন।
২) যেকোন ঝড় পরর্বতী সময়ে আপনার বাড়ীর আশেপাশে বৈদ্যুতিক সঞ্চালন লাইনে কোন গাছপালা পড়লে তা দ্রুত নিকটবর্তী অফিসকে অবহিত করুন।
৩) বৈদ্যুতিক কোন তার ছিড়ে পড়লে তা স্পর্শ না করে অতিদ্রুত নিকটবর্তী অফিসকে জানান এবং অফিসের লোক না আসা পর্যন্ত উক্ত স্থানে পাহারার ব্যবস্থা করুন,যাতে কেউ ছিড়া তারটি স্পর্শ না করে। বৈদ্যুতিক যেকোনো তারই বিপদজনক, স্পর্শে জীবন হানি ঘটতে পারে
৪) আপানাদের গ্রাহক প্রান্তে বিদ্যুৎ বিভাগের লোক কাজ করার সময় দ্রুততার সহিত কাজ করার জন্য স্থানীয় পর্যায়ে জনবল দিয়ে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে পারেন।
…যারা আপনার বাসায় বিদ্যুৎ প্রদান এবং বৈদ্যুতিক লাইনে প্রতিনিয়ত কাজ করেন তারা মৃত্যুকে হাতের মুঠোয় নিয়ে কাজ করেন। যেকোন পরিস্থিতিতে বা একটি ভুল হলেই ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দূর্ঘটনা।

সহযোগিতা কামনায়,
ডিজিএম,
বরুড়া জোনাল অফিস,
কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি -১
বিঃদ্রঃঅত্র অফিসের আওতাধীন সকল মোবাইল নম্বর আমার পূর্ববর্তী post এ দেয়া আছে।

Leave a Comment