বাঙ্গরায় বাবাকে টাকা দেয়ায় স্ত্রীর আত্মহত্যা!

মাহফুজুর রহমান, মুরাদনগর(কুমিল্লা) প্রতিনিধি:
কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় প্রবাসী ছেলে বাবাকে ঈদ উপলক্ষে টাকা দেয়ায় ব্লেড দিয়ে গলা কেটে আত্মহত্যা করেছে স্ত্রী রোজিনা আক্তার (৩০) নামের এক গৃহবধূ। রবিবার সকালে উপজেলার বাঙ্গারা বাজার থানাধীন পিপড়িয়াকান্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রোজিনা আক্তার পিপড়িয়াকান্দা গ্রামের প্রবাসী ইলিয়াস মিয়ার স্ত্রী ও পার্শবর্তী বি-বাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার পূর্বহাটি গ্রামের মান্নান মিয়ার মেয়ে।
খবর পেয়ে মুরাদনগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ জাহাংগীর আলম ও বাঙ্গরা বাজার থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ কামরুজ্জামান তালুকদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
জানা যায়, পিপড়িয়াকান্দা গ্রামের ওয়াজেদ মিয়ার ছোট ছেলে ইলিয়াস মিয়া প্রায় ১২ বছর আগে পার্শবর্তী বাঞ্ছারামপুর উপজেলার পূর্বহাটি গ্রামের মান্নান মিয়ার মেয়ে রোজিনা আক্তারের সাথে পারিবারিক ভাবে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের ১২ বছরের সংসার জীবনে রয়েছে ৩টি পুত্র সন্তান। ছেলে ও নাতিদের সুখের জন্য বাবা ওয়াজেদ মিয়া বানিয়ে দিয়েছেন আলাদা বাড়ী এবং বসবাস করার ঘর। তার পরেও যেন মন ভরছিলোনা ছেলের বউ রোজিনা আক্তারের। স্বামী ইলিয়াস মিয়া প্রবাস থেকে বাবার উদ্দ্যেশে কিছু পাঠালেই সংসারে চলতো অশান্তি। আসছে ঈদুল আযহা উপলক্ষে প্রবাস থেকে ছেলে ইলিয়াস মিয়া বাবা ওয়াজেদ মিয়ার জন্য ১০ হাজার, স্ত্রী রোজিনা আক্তারের জন্য ২১ হাজার ও দাদীর জন্য ৫ শত টাকা পাঠান। শশুরকে টাকা দেয়ার জের ধরে রোজিনা আক্তার তার স্বামীর সাথে ঝগড়া হয়।
আর সেই ঝগড়ার জের ধরেই রবিবার সকালে গলায় ব্লেড লাগিয়ে আত্মহত্যা করতে পারেন বলে মোবাইল ফোনে জানান নিহত রোজিনার স্বামী ইলিয়াস মিয়া।
তবে তার উল্টো কথা বলেন নিহত রোজিনার বাবা আবদুল মান্নান তিনি বলেন, আমার মেয়েকে বিয়ে দেয়ার পর থেকেই তার উপরে স্বামীর পরিবারের সবাই নানা ভাবে নির্যাতন করতো। যার কারণে সে এই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে।
এ বিষয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, নিহতের স্বামী তার বাবাকে ঈদ উপলক্ষে টাকা দেয়ার জের ধরে আত্মহত্যার ঘটনাটি ঘটেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে। বাকিটা তদন্ত সাপেক্ষে বলা যাবে। নিহত রোজিনার লাশ ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Comment