ভারতজুড়ে তৃতীয় দফার লক ডাউনের ঘোষণা, চলবে ১৭ মে পর্যন্ত

প্রসেনজিৎ দাস, আগরতলা (ভারত) প্রতিনিধিঃ সব জল্পনা কল্পনার অবসান, দ্বিতীয় দফা শেষ না হতেই তৃতীয় দফার লকডাউনের ঘোষণা দিল কেন্দ্রীয় সরকার। মেয়াদ বাড়ল আরও দুই সপ্তাহ অর্থাৎ ১৪দিন। বেশ কিছু নতুন নিয়মও ঘোষণা করল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। রেড জোনে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ নিষেধাজ্ঞা আনা হয়েছে। শুক্রবার থেকেই এই নিয়মগুলি লাগু হচ্ছে। জোনভিত্তিক নিয়ম বরাদ্দ করা হয়েছে। তবে আগের দুই দফার মতো কড়াকড়ি থাকছে না লকডাউনের তৃতীয় দফায়।

জানা যায়, রেড জোনে নিষিদ্ধ সাইকেল, রিকশা, অটো, ট্যাক্সি, ক্যাব চালানো। এমএনআরইজিএ প্রকল্পের কাজ, খাদ্যপ্রক্রিয়াকরণ, ইঁটভাঁটাগুলি চালু করার নির্দেশ মিলেছে। গ্রামীণ এলাকায় খোলা থাকবে শিল্পতালুক ও নির্মাণ কাজ। চালু থাকবে কৃষিকাজ ও অনুসারি শিল্প। প্রাণীপালন যেমন পোলট্রি, মৎস্যপালনের কাজ চলবে। উদ্ভিজ ও বনজ শিল্প ও অনুসারি শিল্প খোলা থাকবে। স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সব রকম পরিষেবা চালু থাকবে। আয়ুর্বেদিকও এই পরিষেবার মধ্যে পড়বে।
শিশুদের হোম, বয়ষ্কদের হোম, দুঃস্থ, দেউলিয়া, মহিলা ও বিধবদের জন্য হোম, অঙ্গনওয়াড়িগুলি চালু থাকবে। এছাড়াও রেড জোনে চালু থাকবে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া, আইটি ও অনুসারি পরিষেবা, ডেটা ও কলসেন্টার, হিমঘর, ওয়্যারহাউজ। চালু থাকবে টেলিফোন ও ইন্টারনেট পরিষেবা। জল, বিদ্যুৎ, সাফাই কর্মী পরিষেবা চালু থাকার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। চালু থাকবে ক্যুরিয়র ও ডাক পরিষেবা। অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পরিষেবা আগের মতোই চালু রাখার সিদ্ধান্ত।
অরেঞ্জ জোনে ট্যাক্সি ও ক্যাব চললে তাতে চালক সমেত সর্বোচ্চ দুজন যাত্রী থাকতে পারবেন। আন্তঃজেলা যাতায়াত নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে এই জোনে। অনুমতি ছাড়া আন্তঃ জেলা যাতায়াত করা যাবে না। ৩. গ্রিন জোনে সবধরণের পরিষেবাই চালু রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, কিছু বাদে। বাস চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে ৫০ শতাংশ যাত্রী নিতে পারবে বাসগুলি।
বাস ডিপোতেও ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ শুরু করতে বলা হয়েছে। সব ধরণের পণ্যবাহী গাড়ি চলাচলে ছাড় দেওয়া হয়েছে। কোনও রাজ্য পণ্যবাহী গাড়ির চলাচলে বাধা দিতে পারবে না বলে নির্দেশ দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। অরেঞ্জ ও গ্রিন জোনে ই-কমার্স সংস্থাগুলি অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ছাড়াও অন্যান্য দ্রব্য সরবরাহ করতে পারবে।কি কি বন্ধ থাকবে– জোন ভিত্তিক কিছু বিধিনিষেধ ছাড়াও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক দেশজুড়ে কিছু নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। এর মধ্যে রয়েছে ১. ট্রেন, মেট্রো, বিমান ও আন্তঃরাজ্য সড়ক যাতায়াত বন্ধ।
২. স্কুল কলেজ, নানা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হোটেল, রেস্তোঁরা, সিনেমা হল, শপিং মল, জিম, স্পোর্টস কমপ্লেক্স, সামাজিক-রাজনৈতিক-ধর্মীয়-জমায়েত, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান বন্ধ

Leave a Comment