রংপুরে প্রগতিশীল ছাত্র জোটের কর্মসূচি থেকে গ্রেফতারকৃতদের মুক্তি দাবি সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

আজ ২৮ জুন রংপুরে স্বাস্থ্য খাতে লুটপাট, অব্যবস্থাপনা ও বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু বন্ধের দাবিতে প্রগতিশীল ছাত্র জোটের কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচি থেকে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট রংপুর নগরের সহ-সভাপতি প্রহ্লাদ রায়, সদস্য হাবিব ও শুভ, ছাত্র ফ্রন্ট রংপুর নগরের সাবেক সভাপতি আশিকুর রহমান তুহিন, ছাত্র ইউনিয়ন রংপুর নগরের সাধারণ সম্পাদক নাহিদ ও সদস্য বিশাল সহ ১২ জনকে গ্রেফতার ও পরবর্তীতে জেলা বাসদ অফিসে হামলা চালিয়ে রংপুর জেলা বাসদ সম্বয়ক কমরেড আব্দুল কুদ্দুসকে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট। কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আল কাদেরী জয় ও সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন প্রিন্স এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, “সারাদেশে স্বাস্থ্য খাতে লুটপাটের মহোৎসব চলছে, মানুষ বিনা চিকিৎসায় মারা যাচ্ছে, ত্রাণ লুটপাট হচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে সরকারের কোন অবস্থান নেই। তাদের অবস্থান এর বিরুদ্ধে যারা প্রতিবাদ করে তাদের বিরুদ্ধে। প্রতিবাদের সকল ভাষাকে গ্রেফতার-হামলা-মামলা দিয়ে দমন করতে চায় সরকার। আজ প্রগতিশীল ছাত্র জোটের সম্পূর্ণ গণতান্ত্রিক কর্মসূচিতে এরকম ন্যাক্কারজনক হামলা ও গ্রেফতার প্রমাণ করে, প্রতিবাদের গণতান্ত্রিক কণ্ঠরোধ করতে সরকার যতটা আগ্রহী, স্বাস্থ্য খাতে লুটপাট দুর্নীতি অনিয়ম বন্ধ করে মানুষের জীবন বাঁচাতে সরকার ততটা আগ্রহী না। আমরা এই ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানাই। আমরা আরো খবর পেয়েছি, এই কর্মসূচি পণ্ড করতে রাজশাহী জেলাতে পুলিশ আগের রাতে ছাত্র ফন্ট কর্মীদের মেসে গিয়ে হুমকি দিয়ে এসেছে এবং আজ জিরো পয়েন্টে শত শত পুলিশ অবস্থান নিয়ে কর্মসূচি পণ্ড করে দিয়েছে”।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, “এভাবে গণতান্ত্রিক আন্দোলন দমন করে, মানুষের জীবনকে ঝুঁকির মুখে ঠেলে দিয়ে দুর্নীতিবাজ, মুনাফালোভীদের স্বার্থ রক্ষা করে সরকার তার ক্ষমতা আজীবন টিকিয়ে রাখতে পারবে না। মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলন আমরা চালিয়ে যাবো শেষ রক্ত বিন্দু দিয়ে হলেও। আমরা মানুষকে আহ্বান জানাই, এই দমন পীড়নের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলুন! নিজের অধিকার আদায়ে সংগঠিত হন”।
নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবি জানান

Leave a Comment