লালমাইয়ে ১৩ বছরের শিশু সাদিয়ার বাল্যবিবাহ বন্ধ করলেন ইউএনও

স্টাফ রিপোর্টারঃ কুমিল্লার লালমাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে ১৩ বছরের শিশু সাদিয়ার বাল্যবিবাহ বন্ধ হয়েছে।

উপজেলার বাগমারা উত্তর ইউনিয়নের মেহেরকুল দৌলতপুর গ্রামের আবদুল খলিলের ৭ম শ্রেণিতে পড়ুয়া শিশু সাদিয়া আকতারের পরিবার আজ তাকে বিয়ে দেয়ার সকল আয়োজন সম্পন্ন করেন।

খবর পেয়ে বিষয়টি লালমাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিব ম্যাজিস্ট্রেট কে. এম. ইয়াসির আরাফাত
তাৎক্ষণিক উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোহাম্মদ রফিকুল ইসলামকে ঘটনাস্থলে পাঠান।

তিনি স্থানীয় ইউপি মেম্বার আবদুল ওহাব সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ নিয়ে বিয়ে বাড়িতে মেয়ের মা বাবাকে বাল্যবিবাহের কুফল ও আইনি নিষেধাজ্ঞার কথা বুঝিয়ে বলে বিয়ের বন্ধের নির্দেশ প্রদান করেন। সাদিয়া আক্তারের পিতা আব্দুল খলিল মেয়ে সাদিয়া আক্তারের ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবেন না বলে মুচলেকা প্রদান করেন।
শিশুবয়সে বাল্যবিবাহ থেকে পরিত্রাণ পেল সাদিয়া ও তার পরিবার।
বাল্যবিবাহ বন্ধ করায় স্থানীয় জনসাধারণের পক্ষে ইউপি মেম্বার আবদুল ওহাব বলেন, বাল্যবিবাহ বন্ধ করে সাদিয়ার পরিবারের সাথে আমাদের এলাকাকে কলংকের হাত হতে রক্ষা করায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার কে.এম.ইয়াসির আরাফাত ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলামকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক অফিসার মো রফিকুল ইসলাম বলেন, ইউএনও স্যারের নির্দেশনা পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ি বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করেছি।

ইউএনও লালমাই বলেন, বাল্যবিবাহে শিশু, পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রের উপর ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে। সাদিয়ার মতো শিশুদের করুণ পরিণতি হতে রক্ষা করা দায়িত্ব বলেই এই বিয়ে বন্ধ করেছি।

Leave a Comment